প্রত্যেক দম্পতি চায় তার এক ছেলে সন্তান হোক।কিন্তু বছরের পর বছর যখন হতাশ হয় অর্থাৎ শুধু মেয়ে সন্তানের জম্ম দেয়।তখন তারা বিব্রত হয়ে পরে।ঈশ্বরের কাছ থেকে মাথা ঘুরিয়ে নেয় আর নিজের হতাশা বা ক্রোধ তাদের গ্রাস করে নেয়।যদিও সব ঈশ্বরের কৃপা।তিনি অবশ্যই সকলের ইচ্ছা পূরণ করবেন শুধু ধৈর্য্য ধরতে হবে।
কয়েকদিন আগে এক ঘটনা শুনলাম- এক দারিদ্র দম্পতির তিন কন্যা সন্তান।তারা দুজনেই হতাশ¿ ঈম্বরের উপর ভরসা করে তারা পুণরায় সন্তান নিল পুত্রের আশায়। কিন্তু কথাটা সম্পূর্ণ গোপন রেখে।আত্মীয়-স্বজন বা প্রতিবেশী কাউকে জানালোনা।কিন্তু তিনমাস পর স্ত্রী ইঙ্গিত দিল যে সে পুণরায় কণ্যা সন্তান গর্ভে ধারণ করেছে।হতাশ হয়ে তারা ডক্টরের কাছে যায় এবং abortion করিয়ে নেয়।কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে পৃথিবীতে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিল সে আসলে পুত্র সন্তান ছিল।
তাহলে abortion করে কি হলো একটা নিষ্পাপ শিশুর হত্যাকারী হলেন।তাই সকলের কাছে অনুরোধ করবো যে পৃথিবীতে আসতে চলেছে তাকে আসতে দিন।সে তো কোনো দোষ করেনি।
“ঈশ্বর আপনাদের সহায়ক হোক….”